The Padma Bridge

The Padma Bridge

 

The Padma Bridge is one of the dream projects of Bangladesh. It is a multipurpose road and rail bridge over the Padma River. It is the sixths largest bridge in the world. The construction journey was started by China Railway Major Bridge Engineering Company Limited on 7th December, 2014. The whole construction was completed by May 2022. The bridge has been opened by Honourable Prime Minister, Sheikh Hasina on June 25 of 2022. The two-level steel truss bridge is 6.15 km long and 18.10 m wide. It has a four-lane highway on the upper level and a single track railway on the lower level. The whole project cost is estimated to be US 3.868 Billion (Including VAT and IT).It wasn’t easy at the start considering funds and other economic issues when the World Bank cancelled its credit agreement. At last, the country had come up with its own funding.There was not only an economic issue but also an environmental problem. The river Padma has two natures – calm in winter and cruel in summer. So, the construction process was divided into 6 parts. The first was constructing the main bridge. The second part was River training works around 14 km (1.6 Mawa + 12.4 in Janjira). The third and fourth parts were connecting the main bridge with two highways. The final part was constructing the service area and supervision.The bridge will connect the southwest part of the country with the capital and eastern part. As a result, regional co-operation and transport management will be improved.Besides, it will cause a radical change in industrial development. Medical and educational facilities will be easier to access. Thus, it will play an important role in the economic sector of Bangladesh. The world will witness one more history of proud Bangladesh.Experts say that it will play an important role in the economic sector of Bangladesh.

পদ্মা সেতু বাংলাদেশের স্বপ্নের একটি প্রকল্প।  এটি পদ্মা নদীর উপর একটি বহুমুখী সড়ক ও রেল সেতু।  এটি বিশ্বের ষষ্ঠ বৃহত্তম সেতু।  7ই ডিসেম্বর, 2014 তারিখে চায়না রেলওয়ে মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড দ্বারা নির্মাণ যাত্রা শুরু হয়েছিল। পুরো নির্মাণ 2022 সালের মে মাসে শেষ হয়েছিল। 2022 সালের 25 জুন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেতুটি উদ্বোধন করেছিলেন। দুই স্তরের  ইস্পাত ট্রাস ব্রিজটি 6.15 কিলোমিটার দীর্ঘ এবং 18.10 মিটার চওড়া।  এটির উপরের স্তরে একটি চার লেনের মহাসড়ক এবং নীচের স্তরে একটি একক ট্র্যাক রেলপথ রয়েছে।  পুরো প্রকল্পের খরচ আনুমানিক 3.868 বিলিয়ন মার্কিন ডলার (ভ্যাট এবং আইটি সহ)। বিশ্বব্যাংক যখন তার ক্রেডিট চুক্তি বাতিল করে তখন তহবিল এবং অন্যান্য অর্থনৈতিক বিষয় বিবেচনা করা শুরুতে এটি সহজ ছিল না।  শেষ পর্যন্ত, দেশটি তার নিজস্ব অর্থায়ন নিয়ে এসেছিল। সেখানে কেবল অর্থনৈতিক সমস্যাই ছিল না, পরিবেশগত সমস্যাও ছিল।  পদ্মা নদীর দুটি প্রকৃতি রয়েছে – শীতকালে শান্ত এবং গ্রীষ্মে নিষ্ঠুর।  সুতরাং, নির্মাণ প্রক্রিয়া 6 ভাগে বিভক্ত ছিল।  প্রথমটি ছিল মূল সেতু নির্মাণ।  দ্বিতীয় অংশ ছিল নদী প্রশিক্ষণের কাজ প্রায় 14 কিমি (জাঞ্জিরায় 1.6 মাওয়া + 12.4)।  তৃতীয় ও চতুর্থ অংশ দুটি মহাসড়কের সঙ্গে মূল সেতুর সংযোগ স্থাপন করছিল।  চূড়ান্ত অংশে ছিল সার্ভিস এরিয়া নির্মাণ ও তত্ত্বাবধান। সেতুটি দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলকে রাজধানী ও পূর্বাঞ্চলের সঙ্গে সংযুক্ত করবে।  ফলস্বরূপ, আঞ্চলিক সহযোগিতা এবং পরিবহন ব্যবস্থাপনা উন্নত হবে। পাশাপাশি, এটি শিল্প উন্নয়নে আমূল পরিবর্তন ঘটাবে।  চিকিৎসা ও শিক্ষা সুবিধা সহজলভ্য হবে।  ফলে এটি বাংলাদেশের অর্থনৈতিক খাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। বিশ্ব গর্বিত বাংলাদেশের আরও একটি ইতিহাসের সাক্ষী হবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে এটি বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.